রোববার   ৩১ মে ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭   ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

পাবনার খবর
২৮

ঈশ্বরদীতে মশার কয়েলের আগুনে পুড়লো হতদরিদ্র ঝন্টুর স্বপ্ন

পাবনার খবর

প্রকাশিত: ৫ মে ২০২০  

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়নে এক গোয়ালঘরে মশার কয়েল থেকে আগুন লেগে পুড়ে মারা গেছে দুটি গরু ও চারটি ছাগল। গবাদি পশুগুলোর সঙ্গে পুড়ে ছাই হলো অনেক স্বপ্ন। নিঃস্ব হয়ে পড়লো পরিবারটি।

গতকাল সোমবার দিনগত দেড়টার দিকে ঈশ্বরদী উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়ের মাজদিয়া ইসলামপাড়া গ্রামের শমসের প্রামাণিকের ছেলে ঝন্টু প্রামাণিকের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। সাঁড়া ইউনিয়নের ইসলামপাড়া গ্রামের দলিল লেখক ফিরোজ হোসেন বাংলানিউজকে জানান, হতদরিদ্র ঝন্টু প্রামাণিক পেশায় পাওয়ার ট্রলি চালক। পরিবারে ২ মেয়ে ২ ছেলে। বড় মেয়েটি কষ্ট করে বিয়ে দিয়েছেন। 

একটি মেয়ে স্থানীয় বাবুল উলুম ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী। আর ছোট দুটি ছেলে স্থানীয় সরকারী প্রাইমারি স্কুলে লেখাপড়া করে। তিনি সন্তানদের পড়ার খরচ ও পরিবারে স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য কাজের পাশাপাশি একটি গাভী, একটি এঁড়ে গরু ও ৪টি ছাগল লালন-পালন করছিলেন। 

প্রতিদিনের মতো  গতকাল সোমবার রাতে গরু-ছাগলগুলো বাড়ির গোয়ালঘরে বেঁধে বাড়ির সবাই ঘুমিয়ে পড়েন। রাত দেড়টার দিকে মশা তাড়ানোর কয়েল থেকে গোয়ালঘরে আগুন লাগে। মুহূর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পড়ে পুরো ঘরে। 

পরিবারের লোকজনের আর্তচিৎকারে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই পরিবারটির শেষ সম্বল দুটি গরু ও চারটি ছাগল অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যায়। প্রায় ২ লাখ টাকা মূল্যমানের দুটি গরু ও চারটি ছাগল হারিয়ে দুই চোখে এখন অন্ধকার দেখছেন ঝন্টু।

হতদরিদ্র অসহায় দিনমজুর ঝন্টু প্রামাণিক (৪০) আক্ষেপ করে জানান, ‘লোন নিয়ে দুটি গরু ও চারটি ছাগল কিনেছিলাম। আর কয়েক মাস পরই গাভীটি বাচ্চা দেওয়ার কথা। এঁড়ে গরুটি সামনের কোরবানী ঈদে বিক্রি করার কথা ছিল। আমার এই আয়েই চলতো ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া। 

এছাড়াও চারটি ছাগলও বড় হয়ে গিয়েছিল। আমি পাওয়ার ট্রলি চালিয়ে কোনো রকমে ছেলে-মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে জীবনযাপন করি। আগুনে আমার সব স্বপ্ন পুড়ে যাওয়াতে একেবারেই যে নিঃস্ব হয়ে গেলাম।’

ঈশ্বরদী ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার, আরিফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গোয়াল ঘরে দেওয়া মশা তাড়ানোর কয়েলেই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ঘটে।  রাত ১ টা ৫০ মিনিটে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীরা রাত ২ টা ২৫ মিনিটে পৌঁছাই। আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভানোর পর দেখি, গোয়ালে থাকা দুটি গরু চারটি ছাগল অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গেছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি প্রায় ৩ লাখ টাকার গবাদিপশু আগুনে পুড়ে গেছে।

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শিহাব রায়হান জানান, ঘটনাটি বেশ দুঃখজনক। বিষয়টি পাবনা জেলা প্রশাসককে অবগত করা হয়েছে। সরকারী সহযোগিতা পেলে সহায়তা করা হবে।

পাবনার খবর
এই বিভাগের আরো খবর