সোমবার   ২৫ মে ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৭   ০২ শাওয়াল ১৪৪১

পাবনার খবর
১৪

ঈশ্বরদীতে ক্রাইম পেট্রোল দেখে শিশুকে হত্যা, আদালতে জবানবন্দী

পাবনার খবর

প্রকাশিত: ১৭ মে ২০২০  


ঈশ্বরদীর সাহাপুর ইউনিয়নের বাবুলচরা গ্রামে ৯ মাস বয়সী শিশু আভিয়া খাতুন হত্যা মামলার প্রধান আসামি সাদিয়া খাতুন হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। 

গতকাল শনিবার (১৬ মে) বিকেলে পাবনা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই জবানবন্দি দেন। অন্য দিকে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ায় তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। গেল ১১ মে দিবাগত রাতে উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের বাবুলচরা গ্রাম থেকে সাদিয়া খাতুনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) হালিম বলেন, ওইদিন বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে শিশু আভিয়াকে তাঁর মা মিলি খাতুন কলা খেতে দেয়। তখন আসামি সাদিয়া খাতুন আভিয়াকে কোলে নিয়ে শিশুটির বাবা আনছারুল মণ্ডলের মুরগির খামারে কাছে নিয়ে যায়। সাদিয়া সেখান থেকে তার নিজের বাড়ির বৈঠকখানায় নিয়ে গিয়ে হত্যা করে। 

পরে বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে মুরগির খামারের বিষ্টার ডোবার মধ্যে শিশু আভিয়াকে লুকিয়ে রাখে সে। পরে অনেক খোঁজাখুজির পর সন্ধ্যায় নিষ্পাপ শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। 

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী বলেন, সাদিয়া খাতুনের স্বামী সোহান শারীরিকভাবে অক্ষম হওয়ার কারণে স্ত্রীর জৈবিক চাহিদা পূরণে ব্যর্থ হয়। এতে সাদিয়ার গর্ভপাত না হওয়ায় সে বিকারগ্রস্ত হয়ে পড়েন। তাতেই প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে শিশুটিকে নৃশংসভাবে হত্যা করে। 

তিনি আরও বলেন, আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে ওই নারী জানায় সে ভারতীয় টেলিভিশনে প্রচারিত ধারাবাহিক ক্রাইম পেট্রোল দেখে হত্যার পরিকল্পনা করে এবং ওই ভাবে কাজগুলো করে।

প্রসঙ্গগত চলতি মাসের ১১ তারিখে শিশু আভিয়া খাতুন নামে একটি শিশুকে গলাটিপে ও ডোবার পানিতে ফেলে হত্যা করা হয়।

পাবনার খবর
এই বিভাগের আরো খবর